Md Hridoy

Web Designer

Blogger

Freelancer

Affiliate Marketer

0

No products in the cart.

Md Hridoy

Web Designer

Blogger

Freelancer

Affiliate Marketer

Blog Post

ফ্রিলান্সিং কি? কিছু ব্যাক্তিগত পরামর্শ।

March 11, 2021 Freelancing Guides
ফ্রিলান্সিং কি? কিছু ব্যাক্তিগত পরামর্শ।

এটিকে আপনি মুক্ত পেশা বলতে পারেন। আপনি আপনার ইচ্ছামত কাজ করতে পারবেন।

ইচ্ছে মত বলতে?

ইচ্ছেমত বলতে আপনি চাইলে আপনার কাজ বায়ার থেকে নেয়ার পর সে কতদিন এর মধ্যে চাচ্ছে ঐ সময় এর মধ্যে করে দিতে পারবেন।

কিভাবে শিখবো?

আমি কোন সময়ই বলবো না আপনি প্রথমই কোন প্রতিষ্ঠান এ গিয়ে কাজ শিখেন।  আপনার শুধু টাকা নষ্ট হবে। আমার ব্যাক্তিগত মতামত এটি।  কারণ আপনি যেই বিষয় বা বেসিক কোন প্রতিষ্ঠান গিয়ে কেন শিখতে যাবেন?  আপনি চাইলে ইউটিউব দেখে বেসিক শিখে ফেলতে পারেন।  তারপর ও না হলে যেকোনো একটি নামকরা আইটি প্রতিষ্ঠান শিখতে পারেন। আপনি বেসিক শিখে এই পেশাকে স্থায়ী করতে পারবেন না। আপনাকে অবশ্যই এডভান্স কাজ শিখতে হবে।

  • বর্তমানে কোনগুলোর চাহিদা বেশি?

১. ওয়েভ ডিজাইন
২. গ্রাফিক্স ডিজাইন
৩. এফিলিয়েট মার্কেটিং
৪. ডিজিটাল মার্কেটিং
৫. এসইও
৬. ভিডিউ এডিটিং

কিন্তুু এই ক্যাটাগরির অনেক সাব ক্যাটাগরি রয়েছে।

যেকোনা একটি বিষয় এর উপর আপনি নিজেকে এক্সপার্ট করতে হবে। আপনি সবকিছু কোন সময়ই শিখতে পারবেন না।  কারণ এখানে প্রতিনিয়ত নতুন কিছু যোগ হচ্ছে সময়ের সাথে সাথে।

সময়ের সাথে সাথে নিজেকে আপগ্রেইট করে তুলতে হবে। যদি নিজেকে এক্সপার্ট বা সময়ের সাথে তাল মিলিয়ে চলার মনোবল থাকে তাহলে ফ্রিলান্সিং সেক্টর আপনার জন্য।

তবে অনেক এ সঠিক গাইডলাইন এর অভাবে অনেক কিছু শিখতে গিয়ে হতাশ হয়ে যায়।

আপনি যদি ওয়েভ-প্রোগামিং শিখতে চান।  তাহলে প্রথমে আপনি HTML & CSS  দিয়ে শুরু করতে পারেন।

এটি পরিপূর্ণ শিখতে বা এর এডভান্স কাজগুলো শিখতে আপনার ৫-৬ মাস সময় লাগতে পারে।  বেসিক না জানলে আপনি এগুলো কয়েকদিন পর ভুলে যাবেন। তাই আপনাকে বেসিক মনোযোগ দিয়ে শিখতে হবে।

আর এডভান্স কাজগুলো শিখতে গিলে আপনাকে বার বার প্রেকটিস করতে হবে।

আমার ব্যাক্তিগত মতামত আমি যা শিখি তা ভুলে যাই। তা আমি লিখার চেষ্টা করতাম। যা শিখতাম তা নোট করে রাখতাম।  যাতে দেখে আবার মনে করতে পারি।  প্রোগামিং বিষয় আপনি সবসময় মনে রাখতে পারবেন না। আপনার অবশ্যই একটা MSDoc বানাতে হবে। যেটা আপনাকে সাহায্য করবে শিখতে।

শিখার চেয়ে লিখার বেশি প্রেকটিস করুন। আমি নিজেও প্রেকটিস করি।  বর্তমান এত পরিমাণ ফ্রেমওয়ার্ক রয়েছে যার শুধু ব্যবহার শিখলে আপনার মর্যাদা বেড়ে যাবে।

আপনি লোকাল + ইন্টারনেশনালি কাজ করতে পারবেন।
আমি আগেই বলেছি আপনার স্কিল থাকতে হবে।  তা না হলে আপনি কাজ করতে পারবেন না। আগে শিখুন পড়ে আর্নিং এর চিন্তা করুন।

আমি কাজ শিখলেও অন্যের কাজ করে দিতাম।  কারণ মার্কেটপ্রেল্স সম্পর্কে আমার অভিজ্ঞতা কম ছিলো। কিভাবে Client মেনেজ করতে হয় বা কাজ কিভাবে বুঝে নিতে হয় এবং কিভাবে জমা দিতে হয়।  এসব বিষয় না জানার কারণে আমার অনেক সময় নষ্ট হয়।

আমি নক পেলে ও কাজ বুঝে নিতে জামেলা হতো।
আপনি ও সেম এই সমস্যায় পড়বেন ।  এই জন্য যারা মার্কেট এ কাজ করে তাদের সাথে যোগাযোগ রাখুন তাদের থেকে কিছু শিখার চেষ্টা করুন।

যাদের থেকে কিছু শিখতে পারবেন না তাদের সাথে বেশি সময় দিতে যাবেন না। আপনার সময় এর অপচয় হবে।

আরেকটি প্রধান বিষয় আপনার অবশ্যই Portfolio Website তৈরি করতে হবে।  বাংলাদেশি ভালো হোস্টি থেকে কিনলে হয়তো ১২-১৩শ টাকার মত খরচ হতে পারে বা ২৫০০শ।

একটি হোস্টিং নেয়ার পর আপনি কি কি জানেন বা কি কি সার্ভিস দিতে পারবেন তা অবশ্যই আপনার ওয়েবসাইট এ এডড করতে হবে।

অনেক এ কাজ জানলেও ২০০০-৩০০০ টাকা খরচ এর ভয়ে ওয়েভসাইট খুলতে হতাশায় ভুগে।  তারা প্রায় একটি বলে আমি কাজ জানি কিন্তুু কাজ পাচ্ছি না।

আপনাকে ভাত খেতে হলে অবশ্যই প্লেট লাখবে। প্লেট ছাড়া খেতে বসলে আপনি হয়তো অল্প খেতে পারবেন বা আপনি আরেকটি বিষয় ভাববেন সবাই প্লেট নিয়ে আসলো আমি কি বাত পড়ে যাবো।

মার্কেট এ কাজ করতে গেলে আপনি ঠিক এমনই ভাবে ব্যার্থ হবেন।  কাজ পেতে হলে অবশ্যই Potfolio সাইট থাকবে হবে। এতে আপনার কাজ পাওয়ার চান্জ বেড়ে যাবে।

আপনাকে সামান্য হলে ইনবেস্ট করতে হবে।  তা না হলে পদে পদে জামেলার সম্মুখীন হবেন।

আমরা পড়াশুনার পিছনে অনেক টাকা খরচ করেছি। কিন্তুু আমাদের পড়াশুনাটা যেনো শুধু সার্টিফিকেট এর জন্য। সেখানে ২০ হাজার লাগলেও আপনি কোন প্রশ্ন করবেন না।  কিন্তুু ২-৩ হাজার হোস্টিং নিতে গিয়ে হাজার প্রশ্ন।

হোস্টিং কারা নিবে?

যারা মার্কেট এ কাজ করতে চায় বা আপনি আপনার শিক্ষাগুলো মানুষের মাঝে উপস্থাপন করতে পারেন।
এতে অন্যরা আপনার লাইফ সম্পর্কে অনেক কিছু জানবে + আপনি যেই সমস্যায় পড়েছেন তা ইচ্ছা করলে আপনি লিখে সবার সাথে শেয়ার করতে পারেন।

আপনার কি লাভ?

আপনার লেখা যখন মানুষ পরবে তখন আপনি বিভিন্ন কম্পানির মাধ্যমে ইনকাম করতে পারবেন।  প্রথমে যেটা পাবেন সেটা Google Adsense.

আপনি পেসিভ ইনকাম করতে চাইলে। আপনাকে আজ থেকেই যেকোনো একটি বিষয়ে লেগে থাকতে হবে।

একটিব প্রথমে বাকি সময় পেসিভ ইনকাম এর চেষ্টা করুন। যখন আপনার পেসিব ইনকাম হতে শুরু করবে তখন আপনার একটিব ইনকাম না করলেও হবে।

বিদ্রোপ : সবই আমার ব্যাক্তিগত মতামত।

Write a comment